‘সরকারি’ ভাবে পঞ্চম মহাসাগর পেল বিশ্ব।



প্রায় এক শতাব্দীর পর বিশ্ব মানচিত্রে যুক্ত হলো নতুন এক মহাসাগর। এবার থেকে পাঠ্যপুস্তকে পড়তে হবে পৃথিবীর মহাসাগরের সংখ্যা ৫।

বিশ্বের স্থায়ী মনুষ্য বসতিহীন মহাদেশ আন্টার্টিকার চারিদিকে থাকা জলভাগকে পৃথিবীর পঞ্চম মহাসাগর বলেও ঘোষণা করল ন্যাশানাল জিওগ্রাফিক, নাম দক্ষিণ মহাসাগর (Southern Ocean)। প্রসঙ্গত, বহু আগেই বিজ্ঞানীরা এই জলভাগ কে বিজ্ঞানীরা এই মহাসাগরকে স্বীকৃতি দিলেও কোন আন্তর্জাতিক চুক্তি স্বাক্ষরিত না হওয়ায় দক্ষিণ মহাসাগর হিসাবে স্বীকৃতি দিতে পারছিল না ন্যাশনাল জিওগ্রাফিক। নতুন মহাসাগর টি আন্টার্টিকার উপকূল ভাগ থেকে 60 ডিগ্রি অক্ষাংশ পর্যন্ত বিস্তৃত এবং যার ক্ষেত্রফল আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের দ্বিগুনের সামান্য বেশি।

দক্ষিণ মহাসাগর তিমি, সীল, পেঙ্গুইন সহ বিভিন্ন বিলুপ্তপ্রায় জীবগোষ্ঠীর বাস, এখানকার সামুদ্রিক বাস্তুতন্ত্র অন্য এলাকার থেকে আলাদা। একাধারে এটি অনন্য অন্যদিকে ভঙ্গুর বাস্তুতন্ত্র তাই একে বাঁচানো জরুরি। বিশ্ব উষ্ণায়নের ফলে এই অঞ্চল বিশ্বের অন্যতম ক্ষতিগ্রস্ত অঞ্চল, একে আগের জায়গায় নিয়ে যেতে না পারলে মানবজাতিকে ভবিষ্যতে সমস্যার সম্মুখীন হতে পারে, মতামত বিশেষজ্ঞদের।