Breaking! বাংলাদেশে মন্দিরে হামলার বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিলেন শান্তনু ঠাকুর

বাংলাদেশে ক্রমাগত সংখ্যালঘুদের ধর্মীয় স্থানে হামলা এবং তাদের ওপর অত্যাচারের ঘটনা বেড়েই চলছে। বাংলাদেশ থেকে আগত শরণার্থীদের নাগরিকত্ব প্রদান করতে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল এনেছিল মোদি সরকার। পশ্চিমবঙ্গে অন্যতম সবচেয়ে বড় শরণার্থী গোষ্ঠী হল মতুয়া সমাজ যারা মূলত বনগাঁ অঞ্চলে থাকেন। বনগাঁ লোকসভা কেন্দ্র থেকে সাংসদ কেন্দ্র সরকারের জাহাজ প্রতিমন্ত্রী শান্তনু ঠাকুর। বিধানসভা নির্বাচনের বনগাঁয় সাতটির মধ্যে ছয়টি আসনে জয়ী হয়েছে বিজেপি। বিধানসভা নির্বাচন চলাকালীন শান্তনু ঠাকুরকে নিয়ে বনগাঁয় মতুয়াদের পীঠস্থান ওড়াকান্দিতে গিয়ে পুজো দিয়ে এসেছিলে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

বাংলাদেশের খুলনার, রূপসা উপজেলার শিয়ালি গ্রামে ০৭/০৮/২০২১ তারিখে মতুয়াদের আরাধ্য শ্রী শ্রী হরিগুরুচাঁদ ঠাকুরের মন্দির সহ হিন্দু ধর্মের একাধিক মন্দির-বিগ্রহ , দোকান – বাড়িঘর ভাঙচুর সহ হিন্দু মহিলাদের, ওপর বর্বরচিত অত্যাচারের ঘটনা ঘটে। এই ঘটনার প্রতিবাদে অবিলম্বে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপের দাবি জানিয়ে নরেন্দ্র মোদির নিকট পত্র মাধ্যম দ্বারস্থ হলেন শান্তনু ঠাকুর। চিঠিতে তিনি জানিয়েছেন যে বাংলাদেশে সংখ্যালঘুদের ওপর ক্রমাগত অত্যাচার চালিয়ে তাদের বেঁচে থাকার অধিকার কেড়ে নেওয়া হয়েছে। তাই বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে কথা বলে বিভিন্ন মাধ্যম মারফত অবিলম্বে সংখ্যালঘুদের উপর অত্যাচার বন্ধ হওয়া দরকার।