মন কি বাতে লক্ষ্য বাংলা, মোদির মুখে ঋষি অরবিন্দ বাংলা কবিতা

আসন্ন বাংলার বিধানসভা ভোট। ফলত, বিজেপি যে আরও বেশী করে বাংলার মানুষকে লক্ষ্য করে প্রচার চালাবে, এতে অবাক হওয়ার কিছু নেই। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ‘মন কি বাত’ও বাদ পড়লেন না এতে। তাঁর ‘মান কি বাত’ অনুষ্ঠানে ঋষি অরবিন্দের কবিতা ও দর্শন নিয়ে আলোচনা করলেন তিনি। আগামী ৫ই ডিসেম্বর ঋষি অরবিন্দর ৭০ তম জন্ম বার্ষিকী। প্রধানমন্ত্রী বলেন, এখনকার ভারতবর্ষেও সমানভাবে প্রাসঙ্গিক অরবিন্দর চিন্তাভাবনা। দেশের যুবসমাজ যত বেশী করে জানবে আরবিন্দকে, তত বেশী করেই উপলব্ধি করবে নিজেকে ও নিজের দেশকে।

তাঁর ভাঙা বাংলাতেই প্রধানমন্ত্রী আবৃত্তি করলেন অরবিন্দর একটি কবিতার অংশ। এই কবিতায় ঋষি অরবিন্দ লিখছেন, সূচ থেকে দেশলাই সমস্ত কিছুই আসে বিদেশ থেকে, ফলত বিদেশী ক্ষমতাবৃত্ত থেকে স্বাধীন হতে পারেনি ভারতবাসী।

অরবিন্দর স্বদেশী ভাবধারার কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, নিজ দেশের দ্রব্যসামগ্রী ব্যবহারের মাধ্যমেই আমরা আসল স্বাধীনতা পেতে পারি। এইক্ষেত্রে “আত্মনির্ভর” ভারত গড়ে তোলার যে অঙ্গীকার প্রধানমন্ত্রী নিয়েছেন, তারও প্রচার করেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ‘মান কি বাত’ বহুমাত্রিক সমালোচনার সম্মুখীন হয়ে এসেছে। প্রসঙ্গত উল্লখ্য, তাঁর বেশীরভাগ ভাষণের মতোই ‘মান কি বাত’ও হিন্দিতে সম্প্রচারিত হয়, যদিও সাথে সাথে ভাষণের ইংরেজি লিপি ইউটিউব ভিডিওতে দেখা যায়। তবে বাংলা বিধানসভা ভোটের আগে, বাঙালি বিপ্লবী ঋষি অরবিন্দকে নিয়ে চর্চার মাধ্যমে বাঙালীর মন জেতার চেষ্টা করছেন প্রধানমন্ত্রী এবং এর পেছনে রয়েছে রাজনৈতিক কারণ, এমনটাই মনে করছেন অনেকে।