বাংলা সিনেমার সোনালী যাত্রাপথে অভিনয় থেকে পরিচালনার সফরে অনির্বাণ ভট্টাচার্য

ড্রাকুলা স্যার এর দুই দাঁত মনে ভয়ের সঞ্চার ঘটালেও , আজীবন শুধু ভালোবাসাই চেয়ে গেছেন তিনি । সাথে ভালোবেসেছেন অভিনয়কে, মঞ্চকে এবং তার প্রিয় দর্শকদের ‌। শুরুটা থিয়েটারের মঞ্চ থেকে হলেও এখন তার বর্তমান পরিচয় অভিনেতা , গায়ক এবং এক বলিষ্ঠ পরিচালক হিসেবে ।
“নাট্যাভিনয় একটি পবিত্র শিল্প”- একথা মনে প্রাণে বিশ্বাস করতেন বলেই মঞ্চ কোনদিনই ত্যাগ করেননি । ক্যামেরার সামনে অভিনয়ের সাথে সাথেই নিজের পুরনো ঠিকানা ভোলেননি অর্নিবান। প্রথম সারির নায়কদের তালিকায় থাকলেও তিনি ব্যতিক্রমী , ব্যতিক্রমী তার কাজও। এই ব্যতিক্রমীতার মাঝেও নিজেকে বিভিন্ন রঙে রাঙিয়ে দেখতে পছন্দ করেন অভিনেতা । প্রসঙ্গত উল্লেখযোগ্যভাবে নজর কাড়েন ২০১৫ সালের জি অরিজিনালস এর “কাদের কুলের বউ” ছবির মাধ্যমে । এরপর ধীরে ধীরে সোনালী অক্ষরে বাংলা ছবির যাত্রাপথ রচনায় তার অবদান অবর্ণনীয়। সম্প্রতি উল্লেখযোগ্যভাবে তিনি নজর কেড়েছেন পরিচালক হিসেবে। পরিচালক হিসেবে প্রথম হাতে খড়ি হলেও, তার বলিষ্ঠ পরিচালনায় মন্ত্র মুগ্ধ দর্শক থেকে তাবড় তাবড় কলাকুশলীরা। শেক্সপিয়ারের বহু শতাব্দী পুরনো সৃষ্টি “ম্যাকবেথ” এর সাথে তার সমাজের প্রতি দৃষ্টিভঙ্গির এক অপরূপ মেলবন্ধন এর ফলই “মন্দার”। পরিচালক হিসেবে প্রথম পদক্ষেপেই সফল হয়েছেন অভিনেতা অনির্বাণ ভট্টাচার্য । তাই স্বাভাবিকভাবে সাধারণ মানুষের তার প্রতি আস্থা অনেকাংশে বেড়ে গেছে।