প্রথমে গ্রহণ, পরে কি দলের চাপে সম্মান প্রত্যাখ্যান বুদ্ধদেবের?

গতকাল মোদি সরকারের তরফ থেকে পশ্চিমবঙ্গের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যকে পদ্মভূষণ সম্মান দেওয়া হয়। ঘোষণা হওয়ার পর সিপিআইএমের একাধিক নেতা পদ্ম সম্মানের বিরুদ্ধে বক্তব্য রাখতে শুরু করে। সিপিআইএম রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্রর তরফ থেকে বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়।
এরপরই প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তরফ থেকে বিবৃতি প্রকাশ করে দাবি করা হয় যে সরকারের তরফ থেকে নাকি তার সাথে যোগাযোগ করাই হয়নি! এবং তিনি সেই সম্মান প্রত্যাখ্যান করেছেন।

প্রসঙ্গত এই ধরনের সম্মান দেওয়ার অনেক আগে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। যেমন গীতশ্রী সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায় সম্মান ঘোষণার বহু আগেই এই সম্মান গ্রহণ করতে অস্বীকার করেন। তিনি বলেন যে তার অনেক বয়স হয়েছে এবং এই সম্মান বহু আগে দেওয়া উচিত ছিল। প্রতিটি ব্যক্তির পরিবারের সঙ্গে আলোচনা করে তবেই সম্মান ঘোষণা করা হয়। সেই ক্ষেত্রে বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের এমন দাবি নিয়ে প্রশ্ন ওঠে।

সংবাদ সংস্থা এএনআই সূত্রের খবর সকালেই বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের পরিবারের সঙ্গে এই সম্পর্কে কথা বলা হয়। তার স্ত্রী কেন্দ্রীয় সরকারি এক আধিকারিকের সঙ্গে কথা বলে এই সম্মান গ্রহণ করে বলেই রাত্রে বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের নামের সঙ্গে এই তালিকা ঘোষণা করা হয়। সূত্রের দাবি স্বয়ং স্বরাষ্ট্র সচিব অজয় ভাল্লা বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের স্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেন।

সমাজ সেবার জন্য প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীকে এই সম্মান দেওয়ার ঘোষণা করে মোদী সরকার। কিন্তু দেশের তরফ থেকে দেওয়া এই সম্মানকে কেবলমাত্র রাজনৈতিক চিন্তাধারায় পার্থক্য থাকার জন্য প্রত্যাখ্যান করা হলো।