ঘূর্ণিঝড় গুলাব ও সঙ্গে আরও একটি গভীর নিম্নচাপশক্তি বাড়িয়ে এগিয়ে আসছে বাংলার দিকে


উত্তর পূর্ব বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি হওয়া গভীর নিম্নচাপ এখন ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়েছে। তার নাম পাকিস্থান রেখেছে ‘ঘূর্ণিঝড় গুলাব ‘।এটা রবিবার সন্ধ্যায় আছড়ে পড়বে উড়িষ্যার বেশকিছু অংশে তারপর সেটি বাংলাদেশে দিকে চলে যাবে। এটার প্রভাব বাংলায় অল্প পড়লেও তারসঙ্গে আরও একটি গভীর নিম্নচাপ সৃষ্টি হয়েছে তার প্রভাব বাংলা তেও বেশ ভালো মতন পড়তে চলেছে জানালো হাওয়া অফিস।

পশ্চিমবঙ্গের উপকূলবর্তি যেসব এলাকা রয়েছে সেই সব এলাকাতে ৫০-৬০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া ও ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে। আলিপুর আবহাওয়া দফতর থেকে জানানো হয়েছে রবিবার থেকে বৃষ্টি শুরু হবে দক্ষিণবঙ্গে সেই বৃষ্টি চলবে বুধবার পর্যন্ত। আর এই অতিভারী বৃষ্টির জেরে নিচু উপকূলবর্তী এলাকাগুলো প্লাবিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে তাই সেখানকার মানুষদের সুরক্ষিত জায়গায় সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এরসঙ্গে শহরাঞ্চলে ভারীবৃষ্টির প্রভাবে জল জমার আশঙ্কা রয়েছে। বুধবার পর্যন্ত মৎস্যজীবীদের মাছ ধরতে যাওয়ায় নিষেধাজ্ঞা জারী করা হয়েছে। দীঘা থেকে পর্যটকদের খালি করে দেওয়া হয়েছে যতদিন না এই দুর্যোগ কাটবে দীঘা পর্যটক শুন্য রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রশাসন। উপকূলবর্তী যেসব জেলা তারমধ্যে পূর্বমেদনীপুর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনায় বেশি প্রভাব পড়বে এই নিম্নচাপের। কলকাতাসহ দক্ষিণবঙ্গের সমস্ত জেলাগুলোতে সোমবার থেকে বুধবার পর্যন্ত ভারী থেকে আতিভারী বৃষ্টির সতর্কতা জারি হয়েছে।