আজব যুক্তি দিয়ে বিজেপি ছাড়লেন বনি সেনগুপ্ত

নিজস্ব প্রতিনিধি :

ভোট যেন সান্তা ক্লজের ঝুলি! শুধু মাত্র স্বার্থসিদ্ধির জন্যই রাজনীতিতে আসেন কিনা অভিনেতারা সেই নিয়ে ভোটের আগে বিতর্ক হয়েছে বিস্তর। এবার সেই বিতর্কে জল ঢেলে দিচ্ছেন বনি সেনগুপ্তের মতো অভিনেতারা। মা পিয়া সেনগুপ্ত কিংবা প্রেমিকা কৌশানি ঘাসফুলে যোগদান করলেও বনি ভোটের আগে যোগদান করেন পদ্মফুল শিবিরে।যদিও তারপর তাকে ভোটের প্রচারে ময়দানে নামতে দেখা যায়নি । সরকারে না আসার পর থেকেই এহেন অভিনেতা অভিনেত্রীদের বেসুরো ভাব শুরু হয়। এবার বনি তার টুইটার হ্যান্ডেল থেকে জানালেন বিজেপি তার কথা রাখেনি,টলিউড এবং রাজ্যের জন্য তারা ভাবছেনা। অগত্যা দল ছাড়তে বাধ্য হলাম। আমার সাথে বিজেপির সমস্ত সম্পর্ক শেষ।

কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে যেখানে বিজেপির ক্ষমতায় এলো না, সেখানে প্রতিশ্রুতি পূরণ করবে কি? তার থেকেও বড় প্রশ্ন, নির্বাচনী ইশতেহারে টলিউডের জন্য কিছু করার তেমন দাবি করেও নি বিজেপি। স্বাভাবিকভাবে রাজনীতিতে অভিনেতা অভিনেত্রীরা বসন্তের কোকিল হয়ে গিয়েছেন।প্রসঙ্গত রাজিব ব্যানার্জির হাত ধরে বিজেপিতে এসেছিলেন বনি সেনগুপ্ত। সে নিজেও এখন তৃণমূলে। অন্যদিকে তার বান্ধবী কৌশানি কৃষ্ণনগর উত্তরে তৎকালীন বিজেপি প্রার্থী মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে পরাজিত। সেই মুকুল রায়ও এখন তৃণমূলে।

এর আগে শ্রাবন্তীর মতো অভিনেত্রীও এমন ঘটনা ঘটিয়েছেন। তথাগত রায় অভিযোগ করেছিলেন এদের টাকা দিয়ে দলে আনা হচ্ছে। সেই অভিযোগ কতখানি সত্যি তা প্রমানসাপেক্ষ হলেও অভিনেতাদের দলে টেনে যে কিছু কাজের কাজ হয়নি তা বুঝছেন রাজ্য নেতৃত্ব।