করোনা ভাইরাস আটকাতে প্রথম মানুষের উপর প্রতিষেধক প্রয়োগ গবেষকদের! খুলতে চলেছে নতুন দিশা?

আমার হবে না, ওর হয়েছে হোক, অনেকের এমন ভাবতে ভাবতে কেটে গিয়েছে মোক্ষম সময়। আর সেই সময়ের সুযোগেই আক্রমণ শানিয়েছে কভিড ১৯ নোবেল করোনা ভাইরাস। যার কবলে পড়ে মঙ্গলবার দুপুর পর্যন্ত বিশ্ব জুড়ে মৃত্যু হয়েছে কমপক্ষে ৭, ১৫৪ জনের। পৃথিবীর ১২০ এর বেশি দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ১,৮২,৪০৭ জন। আর সুস্থ হয়ে ফিরেছেন ৭৯, ৪৩৩ জন আক্রান্ত! এমনই পরিসংখ্যান দিচ্ছে আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম আলজাজিরা। এদিকে ভারতের অবস্থাও চিন্তার। ১২৫ জনের আক্রান্তের খবরের পাশাপাশি, আজই খবর এসেছে আরেকটি মৃত্যুর। যা ভারতে করোনায় মৃতের সংখ্যা বাড়িয়ে ৩ করেছে। মহারাষ্ট্রের ওই মহিলার বয়স ৬৪ বছর বলে জানা গিয়েছে।

এইরকম এক পরিস্থিতির মধ্যে, খানিকটা স্বস্তির খবরও আসছে। আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম গুলোতে জানানো হচ্ছে, করোনা অর্থাৎ কোভিড-১৯ নোবেল করোনা ভাইরাস রুখতে টিকার আবিষ্কার হতে পারে খুব শীঘ্রই। এমনকি, ইউএসের গবেষকদের মিলিত প্রয়াসে এমনই এক প্রতিষেধক‌ও নাকি তৈরি হয়েছে, এমনকি ওই দেশের সংশ্লিষ্ট দফতর সূত্রে এমনও বলা হচ্ছে যে, একজন মানুষের উপরে ওই প্রতিষেধক নাকি প্রয়োগ‌ও করা হয়েছে। ৪৩ বছর বয়সি এক মহিলার শরীরে প্রয়োগ করা হয়েছে এই প্রতিষেধক।

জানা গিয়েছে, ‘ইউএস ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ হেল্থ,’ যা ইএস-র স্বাস্থ্য বিভাগের অন্তর্গত। যাঁরা, একটি বায়োটেক সংস্থা ‘মডার্ণা’র সঙ্গে যৌথভাবে এই কাজ করছে। এমনই জানা গিয়েছে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম সূত্রে। গবেষকদের এই দাবিতে, তাজ্জব গোটা বিশ্ব। যদি এই প্রয়োগ সফল হয়, তাহলে সমসাময়িক পরিস্থিতিতে তা ইতিহাস সৃষ্টি করবে বলেই মত স্বাস্থ্যমহলের একাংশের।

ওই সূত্রে আরও জানা যাচ্ছে, এই প্রতিষেধকের ‘ট্রায়াল’ হিসেবে ৪৫ জন, ১৮ থেকে ৫৫ বয়সি পুরুষ এবং প্রসূতি নন এমন মহিলাকে নির্বাচন করা হবে। যাঁদের একটি ডোজ এর ২৮ দিন পর, আরেকটি ডোজ দেওয়া হবে। এই প্রক্রিয়া যে বেশ কঠিন এবং গুরুত্তপূর্ণ তা জানিয়েছেন, ওই সংস্থার আধিকারিক ড. অ্যান্টনি ফৌসি।

১৭.০৩.২০২০